নবজাতক বা শিশুর যৌনাঙ্গ কিভাবে পরিচর্যা করবেনঃ

নবজাতক বা শিশুর যৌনাঙ্গ কিভাবে পরিচর্যা করবেনঃ

নিয়মিত শিশুর ডায়পার বা ন্যাপি পরিবর্তন করা জরুরী। যদি সে মলত্যাগ করে তাহলে তা দ্রুত পরিষ্কার করতে হবে। কারণ মল ও প্রস্রাব মিশে গেলে শিশু বিব্রত বোধ করে এবং তা শিশুর ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। ছেলে ও মেয়ে শিশুর যৌনাঙ্গ পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে কিছু ভিন্ন নিয়ম রয়েছে, যা সঠিকভাবে না করলে শিশুর ক্ষতি হতে পারে।


# নবজাতক ছেলে শিশুর যৌনাঙ্গ পরিচর্যা-

শিশুর ডায়পার পরিবর্তনের সময় এবং গোসলের সময় ভাল করে লিঙ্গ ও অন্ডকোষের চারপাশে নরম সুতি কাপড় বা তুলো ভিজিয়ে অথবা ওয়েট টিস্যু দিয়ে লেগে থাকা ময়লা মুছে দিতে হবে।

ছেলে নবজাতক শিশুর লিঙ্গের অগ্রভাগে সাধারণত পরিষ্কার থাকে। যদি কখনো পরিষ্কার করতে হয়, তখন অগ্রভাগের চামড়া টেনে ধরে পরিষ্কার করা যাবে না। এক্ষেত্রে চামড়া আবার আগের জায়গায় ফেরত আসে না।

শিশুর ন্যাপির স্থান পরিষ্কার করার পর সেখানে ভেসলিন বা অলিভ অয়েল দেওয়া যেতে পারে। এটি শিশুকে প্রস্রাবের ভেজা থেকে দূরে রাখে। শিশুর লিঙ্গে অস্বাভাবিক কিছু মনে হলে বিশেষজ্ঞ দেখানো উচিত।

# নবজাতক মেয়ে শিশুর যৌনাঙ্গ পরিচর্যা –

নবজাতক মেয়ে শিশুর জন্মের প্রথম কয়েকদিন তার যৌনাঙ্গ কিছুটা ফোলা এবং লালচে বর্ণ ধারণ করে অথবা যৌনাঙ্গ দিয়ে সাদা বা রক্ত মিশ্রিত স্রাব বের হতে পারে। এই ধরনের লক্ষণ স্বাভাবিক। জন্মের আগে মায়ের হরমোনের সংস্পর্শে আসার কারণে শিশুর এমনটা হয়ে থাকে। প্রথম ৬ সপ্তাহ পরেও যদি এমন স্রাব লক্ষ্য করেন তাহলে শিশুরোগ বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হতে হবে।

মেয়ে শিশুর যৌনাঙ্গে অনেক সময় সাদা ময়লা জমে থাকে, তাই গোসলের আগে ঐ স্থান পানিতে ভেজানো তুলো দিয়ে পরিষ্কার করে দিতে হবে। শিশু মল-মুত্র ত্যাগ করার পর যদি মল যৌনাঙ্গের পাপড়ি পর্যন্ত পৌঁছে যায় তাহলে পরিষ্কার আঙ্গুল দিয়ে খুব আলতো করে যৌনাঙ্গ পাপড়ি দুটি সরিয়ে, একটি ভেজা নরম কাপড়, তুলো বা ওয়েট টিস্যু দিয়ে উপর থেকে নিচ পর্যন্ত সমস্ত অংশ মুছে দিতে হবে।

এভাবে যৌনাঙ্গের থেকে শুরু করে মলত্যাগের রাস্তা পর্যন্ত মুছে দিতে হবে। এতে করে শিশুর যৌনাঙ্গে কোন জীবাণুর সংক্রমণ হয় না।

Leave a Reply

×

Cart